মুস্তাফিজ খেলবেন কীনা

মুস্তাফিজ খেলবেন কীনা

ফজলুল বারী, ক্রাইস্টচার্চ (নিউজিল্যান্ড) থেকে: বাংলাদেশ দলের অন্যতম বোলিং স্তম্ভ কাটার মাস্টার মুস্তাফিজ সোমবারের ম্যাচে খেলবেন কীনা তা এখনও দলের কাছে মূল প্রশ্ন। এ প্রশ্ন সাংবাদিকদের, ক্রিকেটপ্রেমী দেশবাসীর। রোববার ক্রাইস্টচার্চের হেগলি ওভালে ম্যাচ পূর্ববর্তি মিডিয়া ব্রিফিং’এ দলের কোচ হাতুরে সিংহে, ক্যাপ্টেন মাশরাফি বিন মুর্তজার কাছে প্রশ্নটি রাখা হয়েছিল। কোচ বললেন মুস্তাফিজের খেলার ব্যাপারে ফিজিও ক্লিয়ারেন্স দিয়েছেন। সে এখানে প্রতিদিনই উন্নতি করছে। তবে কোচ এমন কথা বলেননি যে মুস্তাফিজ এখনই শতভাগ ফিট। মাশরাফি বিন মুর্তজা বলেন, মুস্তাফিজের ব্যাপারে এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি। এ রকম পরিস্থিতিতে যে কোন খেলোয়াড়ের সিদ্ধান্তই গুরুত্বপূর্ন। মুস্তাফিজই সিদ্ধান্ত নেবে সে খেলবে কীনা। এসব বক্তব্য বিশ্লেষন করলে মুস্তাফিজ খেলবেই মনে করা যেতে পারে। মুস্তাফিজের যে বয়স তাতে তাকে কেউ জিজ্ঞেস করলে কী বলবে সে খেলবেনা? কোচের চোখেমুখের ভাষায় মনে হলো মুস্তাফিজকে দলের যেমন দরকার তেমনি তিনি তার বিরুদ্ধে কোন ঝুঁকিতে যেতে নারাজ। মুস্তাফিজ দলের সঙ্গে আছে। নিউজিল্যান্ড ট্যুরেই সে খেলবে। তবে সোমবার খেলবে কীনা তা জানা যাবে সহসাই।

মাশরাফির কথায় মনে হলো তারা চারজন পেসার নিয়ে খেলার চিন্তাভাবনা করছেন। মাশরাফি যা বলেননি তা হলো পেসারদের মধ্যে সবচেয়ে সাপোর্ট লাগবে রুবেলের। বিপিএল ধরে দূর্দান্ত ফর্মে আছেন রুবেল। গত বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনে খুবই কার্যকর ছিলেন রুবেল। বিশেষ করে এ্যাডিলেইডে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধের ম্যাচে তার বিধবংসী পরপর দুই উইকেটের স্পেলটি বাংলাদেশ দলটিকে আমূল বদলে দেয়। এবারেও রুবেলকে নিয়ে অনেক আশা দলের। তাসকিনও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবেন আশা করা হচ্ছে। আর দলের সবার মাথার ওপরে অভিভাবকের মতো মাশরাফিতো আছেনই। শনি-রবিবারের অনুশীলনে তাইজুলকে ঝালিয়ে নেয়া হলেও নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনে স্পিন এটাক নিয়ে তেমন চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে মনে হয়নি। স্পিনের জন্য অলরাউন্ডার সাকিবতো আছেনই। সিডনির প্র্যাকটিস ম্যাচে সৌম্যকে কাজে লাগিয়ে ভালো ফল পাওয়া গেছে। নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনেও তাকে কাজে লাগানো হতে পারে।

দলের টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানরা এখন ফর্মে রয়েছেন। আছেন নিউজিল্যান্ডের মাটিতে একমাত্র সেঞ্চুরিয়ান ইমরুল কায়েস। এই ক্রাইস্টচার্চেই সেঞ্চুরিটি করেছিলেন ইমরুল। তবে তা এই হেগলি ওভালে নয়। ক্রাইস্টচার্চের মূল স্টেডিয়ামে। যেটি ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়াতে সেখানে আর বড় কোন ম্যাচ হয়না। নিউজিল্যান্ডের প্রস্তুতি ম্যাচে সৌম্য রান পেতে শুরু করাতেও আশা দেখছে বাংলাদেশ। নিউজিল্যান্ডের মতো বাউন্সি উইকেটেই সৌম্য পারফেক্ট। যেখানে বল উঠে আসে সেখানে সে মারকুটে হতে পছন্দ করে। মরা উইকেট সৌম্যর জন্য নয়। তামিম-সাব্বির কী করেন এর ওপরও বাংলাদেশের ভালো করার বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ। মুশফিক-মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ যে ধারাবাহিক আছেন সেটি থাকুক তা সবার কামনা। সাকিব-মাহমুদুল্লাহর কাছে শুধু ব্যাটিং নয় বোলিং সাপোর্ট চায় বাংলাদেশ। সব মিলিয়ে বাংলাদেশ এখন এমন একটি দল এটি শুধু আগের মতো তামিম-সাকিব নির্ভরশীল দল নয়। টোটাল মিলিয়েই এখন বাংলাদেশ দল। এই বাংলাদেশই প্রথম খেলায় জিততে চায় নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে।


Place your ads here!

Related Articles

16th December Victory Day: Bangladesh Marching Forward

On the great occasion of the Victory Day, we remember the supreme sacrifices of the freedom of fighters-men and women

একজন সাধাসিধে মা

১. আমার মা সেপ্টেম্বরের ২৭ তারিখ খুব ভোর বেলা মারা গেছেন। আমার বাবা যখন মারা গেছেন তখন তার কাছে কোনো

The Syrian Conundrum in the Backdrop of American Lies and Duplicities

One does not need Einstein’s IQ to understand how the American Empire has been destabilizing the world for the last

No comments

Write a comment
No Comments Yet! You can be first to comment this post!

Write a Comment