বৈশাখী মেলায় অজি এনএসইউআরস্

বৈশাখী মেলায় অজি এনএসইউআরস্

শাহরিয়ার পাভেল: অজি এনএসইউআরস্, অস্ট্রেলিয়ায় প্রবাসী নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (এনএসইউ) প্রাক্তন ছাত্রছাত্রীদের সংগঠন । সংগঠনটি একই বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রছাত্রীদের মধ্যকার যোগাযোগ ও প্রয়োজনে পারস্পরিক সাহায্য সহযোগীতার জন্য যেমন কাজ করে যাচ্ছে, তেমনি প্রবাসে বাংলা সংস্কৃতি, কৃষ্টি ও ঐতিহ্যের প্রচারেও নানা ধরনের উদ্যোগ নিচ্ছে নিয়মিত । এরই ধারাবাহিকতা এবারের বঙ্গবন্ধু কাউন্সিলের আয়োজনে বৈশাখী মেলায় সংগঠনটির সরব উপস্থিতি ।

এবারের মেলায় অজি এনএসইউআরস্’র অংশগ্রহণ মূলত দুটি কারণে আলাদাভাবে উল্লেখ করার দাবি রাখে । প্রথমতঃ প্রবাসী প্রাক্তন ছাত্রছাত্রীদের সংগঠন হিসেবে এই অংশগ্রহণ নজিরবিহীন । দ্বিতীয় কারণটি অবশ্য আরও তাত্পর্যপূর্ণ – প্রবাসে প্রজন্ম থেকে প্রজান্তরে বাংলা সংস্কৃতি ও বাংলাদেশের অতীত গৌরবকে ছড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা । উম্মে কেকার কোরিয়গ্রাফি ও মাহফুজুর রহমান রানার নির্দেশনায় রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বীরপুরুষ কবিতার মঞ্চায়ন, ছোটদের ফ্যাশন শো এবং বাংলা গানের সাথে নাচ এই চেষ্টারই অংশ । যেখানে অংশগ্রহণ করে আদিয়ান, প্রমিত, সাইখ, প্রতীত, ইশ্ফার, তানিশা, অপ্সরা, আশজাদ, ইশহার, ধ্রুব, অওরিয়া, রুমায়সা, রাইসাহ, রায়িভা, জেমাইমা, আরওশ, জোয়েল, সানিকা, সানজানা – যারা সবাই দ্বিতীয় প্রজন্মের বাংলাদেশি অস্ট্রেলীয়, অজি এনএসইউআরস্’র সদস্যদের সন্তান-সন্ততি ।

পিচ ঢালা এই পথ, আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি, তীরহারা এই ঢেউয়ের সাগর, চার ছক্কা হই হই এবং মেলায় যাইরের মতো পাঁচটি ভিন্ন আমেজের ও তালের গানের সাথে সামঞ্জস্য বজায় রেখে ছোট্ট সোনামণিরা পাঁচবার পোষাক পরিবর্তন করে; উপস্থিত দর্শকদের উপহর দেয় আকর্ষণীয় ফ্যাশন শো । ফ্যাশন শো’টি পরিচালনা করেন রিদফা রহমান এবং মোহসিনা পারভীন । এ পর্যায়ে ‘ময়না ছলাৎ ছলাৎ’ গানের সাথে শিশু শিল্পী সানজানা সামরিনের নাচটি বিশেষভাবে উল্লেখ্য ।

এ’ছাড়াও মেলার আদ্যোপান্ত উপস্থাপনার ভার ছিল অজি এনএসইউআরস্’র কার্যকরী পরিষদের সদস্য সামান্থা ইসলামের উপর । তার চমকপ্রদ ও প্রানবন্ত উপস্থাপনার পাশাপাশি দর্শকশ্রোতাদের মন মাতিয়েছে অজি এনএসইউআরস্’র গড়া নিমবিন ব্যান্ডের অনবদ্য পারফর্ম্যান্স । নিমবিন ব্যান্ডের সদস্যরা হলেন ইমতিয়াজ, নওরোজ, আসফাক, সাদি, ও আরমান ।

তবে এতকিছুর পরও যদি ধোঁয়া ওঠা চায়ের স্টল না থাকত তবে যেন মেলায় অজি এনএসইউআরস্’র উপস্থিতিটা পূর্ণতা পেত না । এমনকি গোটা মেলাটিই হয়ত শ্রী হারাত । কেননা, বাংলাদেশের শহরে, বন্দরে, ঘাটে – সবজায়গায় চায়ের দোকান যেন বাংলা সংস্কৃতিরই অবিচ্ছেদ্য অংগ । সেটিরই একটি যথাযথ প্রয়াস – মেলায় অজিএনএসইউআরস্’র ‘বৈশাখী চা’র স্টল ।

বঙ্গবন্ধু কাউন্সিল আয়োজিত বৈশাখী মেলা অস্ট্রেলিয়া তথা সিডনির বাঙালীদের সবচেয়ে বড় আয়োজন । আয়োজনস্থল, স্টল বিন্যাস কিম্বা স্টেডিয়ামের ভেতর মঞ্চ স্থাপন করে এক মেলাকে কয়কেটি ভাগে বিভক্ত করার যে নতুন ধারা গতবার থেকে শুরু হয়েছে, সেটি এবারের আয়োজনের পরও নানাজনের মুখে সমালোচিত হচ্ছে । কিন্তু তার পাশাপাশি এবারই প্রথমবারের মতো প্রবাসী প্রাক্তন ছাত্রছাত্রীদের একটি সংগঠনকে আয়োজনের সাথে যুক্ত করার প্রয়াসটি মেলায় আগতদের নজর কেড়েছে । তাই এবারের মেলায় প্রবাসী ছাত্রছাত্রীদের সংগঠন হিসেবে অজি এনএসইউআরস্’র নানা সফল উদ্যোগের জন্য একাধারে অজি এনএসইউআরস্ এবং বঙ্গবন্ধু কাউন্সিল উভয় সংগঠনই প্রসংশার দাবিদার।

boishakhi-melay-oz-nsuers-35 boishakhi-melay-oz-nsuers-34 boishakhi-melay-oz-nsuers-21 boishakhi-melay-oz-nsuers-11 boishakhi-melay-oz-nsuers-6 boishakhi-melay-oz-nsuers-5 boishakhi-melay-oz-nsuers-1 boishakhi-melay-oz-nsuers-0


Place your ads here!

Related Articles

আজব সব কারবার

বাংলাদেশের এই খবর গুলো দেখলে অন্তর আত্মা কেঁপে ওঠে । মানবিকতা বিহীন জীবন ।আমি নিজেই এবার দেশে গিয়ে অনেক ক্ষেত্রে

সিডনিবাসীর প্রাণের মেলা রেকর্ড গড়ল

ফজলুল বারী, সিডনি: একটা প্রশ্নের জবাব দেই আগে। সিডনির বৈশাখী মেলা এবার এত দেরিতে করার কারন কী? এই মেলাটি হয় সিডনির

Islamic State in Iraq and Syria grossly misrepresents peaceful Islam

The so-called Islamic State misrepresents grossly the tenets of Islam as revealed in the Holy Qu’ran. Islamic preaches love, peace,

No comments

Write a comment
No Comments Yet! You can be first to comment this post!

Write a Comment